তার পিঠে ছিল গুলির আঘাত, আর বুকে ছিল সুকান্তকে হারানোর নির্মম বেদনা

তানজিম হোসাইন রাকিবঃ

৬০

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহবায়ক, মন্ত্রী ও বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর স্ত্রী ও বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক এবং বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ এর মাতা, বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি, বরিশাল জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সমাজসেবক এবং ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতের প্রত্যক্ষদর্শী সাহান আরা বেগম এর ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ।২০২০ সালের ৭ জুন ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশেষ ত্যাগ করেন।

বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর সহধর্মিণী বীর মুক্তিযোদ্ধা বেগম সাহান আরা আব্দুল্লাহ বরিশাল শহরের কাউনিয়া এলাকায় অভিজাত কাজী পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম কাজী মোখলেসুর রহমান। ছাত্র জীবন থেকেই বেগম সাহান আরা আব্দুল্লাহ রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন। ১৯৬৯ সালে তিনি বরিশাল মহিলা কলেজের ভিপি নির্বাচিত হন। একই ছাত্রসংসদের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন বেগম আরজু মনি সেরনিয়াবাত, আওয়ামী যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের মাতা। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করেন। তিনি পঁচাত্তরের ট্র্যাজেডির বেঁচে যাওয়া গুলিবিদ্ধ একজন প্রত্যক্ষ দর্শী । সেদিন ঘাতকের গুলিতে তাঁর চার বছরের শিশু পুত্র সুকান্ত বাবু, শ্বশুর আবদুর রব সেরনিয়াবাত, ননদ বেবী সেরনিয়াবাত, দেবর আরিফ সেরনিয়াবাত, এবং ভাসুর শহিদ সেরনিয়াবাত নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন।

বেগম সাহান আরা আব্দুল্লাহ একজন মহীয়সী নারী হিসেবে সমাজ ও রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলেন নিজ গুণাবলীতে। রাজনৈতিক জীবনে তিনি বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করতেন। তিনি প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে যেমন যুক্ত ছিলেন, তেমনি ছিলেন সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর অন্যতম পৃষ্ঠপোষক। তিনি বরিশালের অন্যতম নাট্য সংগঠন শব্দাবলী গ্রুপ থিয়েটারের উপদেষ্টামণ্ডলীর চেয়ারম্যান ছিলেন। যুক্ত ছিলেন প্রান্তিকের সাথেও।

দিনটি পালনে জেলা আওয়ামী লীগ দুইদিন ব্যাপি ও মহানগর আওয়ামী লীগ তিনদিন ব্যাপি কর্মসুচী গ্রহন করেছে। শহীদ জননীর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালনে গতকাল শনিবার জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের এক প্রস্তুতি সভায় দুইদিন ব্যাপি কর্মসুচী গ্রহন করা হয়। নগরীর সোহেল চত্বরে দলীয় কার্যালয়ে বিকেলে ওই সভা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হোসেন চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন সাধারন সম্পাদক এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মুনসুর আহমেদ, অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. মুজিবুর রহমান, মাহতাব হোসেন সুরুজ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনিরুল ইসলাম ছবি, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ শাহজাহান হাওলাদার, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি এ্যাড. সাইফুল আলম গিয়াস, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এ্যাড. ফয়জুল হক ফয়েজ, উপ- দপ্তর সম্পাদক এ্যাড. কাইয়ুম খান কায়সার, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এ্যাড. মিলন ভূইয়া, মহানগর কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মিজানুর রহমান। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৭ জুন সকাল ৯ টায় নগরীর মুসলিম গোরস্থানে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহান আরা বেগম এর কবর জিয়ারত ও শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। ৮ জুন বিকেল ৫ টায় বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহান আরা বেগমের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত হবে। মহানগর আওয়ামী লীগের তিনদিন ব্যাপি কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে ৭ জুন সকাল সাতটায় দলীয় কার্যালয়ে দলীয় ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল ১০টায় নগরীর ৩০ ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে কবর জিয়ারত এবং পুস্পস্তবক অর্পন, ৭ জুন থেকে ৯ জুন পর্যন্ত কালোব্যাজ ধারন, ৭ থেকে ৯ জুন পর্যন্ত দলীয় কার্যালয়ে ফজর থেকে আসর পর্যন্ত কোর আন খতম, ৭ জুন নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডে কোরআন খতম ও ধর্মীয় উপসনালয়ে দোয়া প্রার্থনা। ৯ জুন দলীয় কার্যালয়ে রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত।

বীর মুক্তিযোদ্ধা বেগম সাহান আরা আব্দুল্লাহ ৭ জুন ২০২০ইং (রবিবার) রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। তিনি স্বামী, তিন পুত্র, এক কন্যা এবং নাতী-নাতনীসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। পুত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বর্তমানে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র। বেগম সাহান আরা আব্দুল্লাহ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ এর আপন বড় মামী।

এই বিভাগের আরও খবর