দামুড়হুদায় ভাইস চেয়ারম্যানের চড়-থাপ্পরে এক রোজাদার বৃদ্ধের মৃত্যু: থানায় মামলা

দামুড়হুদা প্রতিনিধিঃ

৭০৮

দামুড়হুদায় ভাইস চেয়ারম্যানের চড়-থাপ্পরে এক রোজাদার বৃদ্ধের মৃত্যু: থানায় মামলা

দামুড়হুদা প্রতিনিধিঃ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা মডেল থানায় জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সালিশ বৈঠক শেষে থানার মেইন গেটের সামনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের মারধরে ঘটনায় এক রোজাদার বৃদ্ধের মৃত্যু। নিহত ইস্রাফিল মোল্লা (৭৫) পীরপুর কুল্লা গ্রামের মৃত জনাব আলী মোল্লার ছেলে। নিহত ইস্রাফিলের নাতি ছেলে আলামিন বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় ছয় জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। নিহত ব্যক্তির লাশ ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছেন পুলিশ। আজ ১৬ এপ্রিল শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে দামুড়হুদা মডেল থানার মেইন গেটের সামনে এঘটনা ঘটে।

নিহতের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুর কুল্লা গ্রামের বজলুর রশিদ ও নজরুল ইসলামের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনায় শামসুল ইসলামের ছেলে নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একই গ্রামের বজলুর রশিদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দামুড়হুদা থানা পুলিশ উভয়পক্ষকে নিয়ে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে থানা চত্বরে সালিশ বৈঠকে বসে। সালিশের একপর্যায়ে দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দামুড়হুদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বাদী নজরুল ইসলামের পক্ষ নিয়ে আক্রমনাত্মকভাবে ইস্রাফিলকে গালিগালাজ করতে থাকেন।এক পর্যায়ে সালিশ বৈঠকে মিমাংসা হয়ে যায়। পরে দামুড়হুদা মেইন গেটের সামনে এসে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ভাইস-চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রাগ্ননিত হয়ে ইস্রাফিলকে চড়-থাপ্পড় কিল-ঘুষি ও গলা টিপে ধরে ধাক্কা মারলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এবিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আব্দুল খালেক বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ মীমাংসার জন্য থানায় আসেন ইসরাফিল। মীমাংসা না হওয়ায় থানা থেকে বেরিয়ে যান তিনি।
এ সময় থানার সামনে দামুড়হুদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বৃদ্ধকে ঘুষি ও ধাক্কা দেন। এতে তার মৃত্যু হয়। মরদেহ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত নাতি ছেলে আলামিন বাদী হয়ে ছয় জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করিলে ১নংআসামি শহিদুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

এই বিভাগের আরও খবর